শুক্রবার   ১০ জুলাই ২০২০   আষাঢ় ২৬ ১৪২৭   ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪১

৩৭

শিল্প খাতের প্রণোদনা প্যাকেজ দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ

প্রকাশিত: ২৯ জুন ২০২০  

করোনা সঙ্কট উত্তরণে শিল্প খাতের জন্য ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজ দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কোরবানি সামনে রেখে সাভার চামড়া শিল্প নগরীর কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগার-সিটিপির কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়। এছাড়া কেরু এ্যান্ড কোম্পানির উৎপাদিত এ্যালকোহলের বিক্রি বৃদ্ধির লক্ষ্যে আরও পাঁচটি নতুন লাইসেন্স পেতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হয়েছে। এছাড়া বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী (এডিপি) বাস্তবায়নে এবার শীর্ষস্থানে রয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়।

রবিবার চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী (আরএডিপি) পর্যালোচনা সভায় শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এডিপি বাস্তবায়ন অগ্রগতি প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা যায়, বৃহৎ বরাদ্দপ্রাপ্ত ১৫টি মন্ত্রণালয়ের মধ্যে ২০২০ সালের মে পর্যন্ত শিল্প মন্ত্রণালয় এডিপির সর্বোচ্চ ৭৯ দশমিক ০৩ শতাংশ বরাদ্দ বাস্তবায়ন করেছে।

শিল্প সচিব কে এম আলী আজমের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন। সভায় জানানো হয়, কেরু এ্যান্ড কোম্পানির উৎপাদিত এ্যালকোহলের বিক্রি বৃদ্ধির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে আরও পাঁচটি নতুন লাইসেন্স পেতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বরাবর আবেদন করা হয়েছে। এছাড়া প্রধান কার্যালয়ের অনুমোদন ব্যতীত বাংলাদেশ সুগার এ্যান্ড ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশনের (বিএসএফআইসি) আওতাধীন শিল্প কারখানাগুলোতে অস্থায়ী শ্রমিক নিয়োগ না করার বিষয়ে কঠোর নির্দেশনা প্রদান করা হয়। বিএসএফআইসির আওতাধীন ১৪টি চিনিকলে বর্জ্য শোধনাগার বা ইটিপি স্থাপনের কাজ দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়েও সভায় তাগাদা দেয়া হয়।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করে স্বাস্থ্য-সুরক্ষা বিধি মেনে উৎপাদন কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে হবে। তিনি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন শিল্প কারখানাগুলোকে লাভজনক করার বিষয়ে কর্মকর্তাদের আরও তৎপর হবার আহ্বান জানান। সারের সংরক্ষণে নির্মাণাধীন ১৩টি বাফার গোডাউনের কাজ দ্রুত সমাপ্ত করার নির্দেশনা দেন এবং নতুন ৩৪টি বাফার গোডাউনের নির্মাণ প্রক্রিয়া দ্রুত শেষ করার স্বার্থে বাংলাদেশ স্টিল এ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কর্পোরেশনের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করার পরামর্শ দেন। সভায় শিল্প মন্ত্রণালয়ের একমাত্র মেগা প্রজেক্ট ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার ফ্যাক্টরি নির্মাণ প্রকল্প দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাবার নির্দেশনা দেন শিল্পমন্ত্রী। তিনি বলেন, প্রকল্পের কাজে শুধু অগ্রগতি নয়, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এগুলো বাস্তবায়ন দেখতে চাই। এ জন্য কাজের গতি যে কোন মূল্যে অব্যাহত রাখতে হবে। শিল্পমন্ত্রী করোনার প্রাদুর্ভাবজনিত পরিস্থিতি উত্তরণে শিল্প খাতের জন্য ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজ দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশনা দেন। শিল্প সচিব এ কে আলী আজম বলেন, প্রকল্পগুলোর আর্থিক ও বাস্তব কাজের অগ্রগতির মধ্যে সমন্বয় রেখে দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

নিউজ বাংলার আলো
নিউজ বাংলার আলো
এই বিভাগের আরো খবর