বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৬ সফর ১৪৪১

৩৬০৭

বুয়েটে ছাত্র হত্যার ঘটনায় গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার

অদিত উল্লাহ

প্রকাশিত: ৭ অক্টোবর ২০১৯  

সম্প্রতি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর শের-ই–বাংলা হল থেকে আবরার ফাহাদ নামে একজন শিক্ষার্থীদের মরদেহ উদ্ধার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ফেসবুকের একটি স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে তাকে পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে দাবি করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এদিকে পুলিশি তথ্যমতে তাকে পিটিয়ে হত্যার কথা ধারণা করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়। উক্ত হত্যার ঘটনায় সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ঘটনায় জড়িত সকলের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ইতোমধ্যেই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে হলের আট ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

আটককৃতদের মধ্যে রাসেল ও ফুয়াদকে সোমবার সকালে এবং অনিক ও জিয়নকে দুপুরে আটক করা হয় । বাকি চারজনকে বিকেলে আটক করা হয়। চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাব হোসেন এসব তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ফুয়াদ, রাসেল, অনিক ও জিয়নসহ আরো চারজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

আবরার শিবির কর্মী হোক বা না হোক- তাকে পিটিয়ে মারা অবশ্যই সমর্থন যোগ্য নয়। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এটি নিয়ে মন্তব্য করে বলেছেন, 'ভিন্নমতের জন্য একজনকে মেরে ফেলার কোনো অধিকার নেই।' সন্ত্রাসী কার্যকলাপে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির প্রতি ইঙ্গিত করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে হত্যাকরীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি মনোভাব ব্যক্ত করেন। ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, বুয়েটের এক ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় যেই জড়িত হোক তার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেয়া হবে। সোমবার সকালে সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয়ে নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। 

উক্ত হত্যাকান্ডে সমবেদনা, নিন্দা জানানোর পাশাপাশি জড়িতদের কঠোর শাস্তি দাবি করে বিবৃতি দিয়েছে ডাকসু।

জানা যায়, কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডে আবরারদের বাসা। অত্যন্ত মেধাবী ও ধার্মিক আবরার ছোটবেলা থেকেই লেখাপড়া নিয়ে ব্যস্ত থাকতো সারাদিন। কারো সঙ্গে মিশতো না এবং বাড়ির পাশের মসজিদেই নিয়মিত  নামাজ আদায় করতো। তবে, তার চাচা মিজানুর রহমান ছাত্রজীবনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রশিবিরের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য, ফাহাদ বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের লেভেল-২ এর টার্ম ১-এর ছাত্র ছিলেন। তিনি শেরেবাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন। তার বাড়ি কুষ্টিয়া শহরে।

নিউজ বাংলার আলো
নিউজ বাংলার আলো
এই বিভাগের আরো খবর