শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৬   ০৯ রবিউস সানি ১৪৪১

২৫০

গৃহবধূকে গণধর্ষণের পর স্বামীকে ডেকে এনে হত্যা

প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০১৯  

জামালপুরের সদর উপজেলায় এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের পর তার স্বামীকে হত্যা করে মরদেহ গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে চালানোর অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সোমবার (১৮ নভেম্বর) রাতে নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূকে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গত শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) জামালপুর সদর উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) সকালে শাওন (৩৫) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শাওন সদর উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের আব্দুল হকের ছেলে।

ওই গৃহবধূ জানান, গত শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) রাত ৮টার দিকে ঘর থেকে বাইরে বের হলে প্রতিবেশী ছানোয়ার হোসেন (৪০), শাওন (৩৫) মফিজ উদ্দিন (৩০) তাকে ধরে নিয়ে যায়। পরে ছানোয়ারের বাড়ির পেছনে জঙ্গলে নিয়ে তারা তাকে ধর্ষণ করে এবং গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করে। এরপর ওই গৃহবধূকে ছানোয়ারের বাড়িতে আটকে রেখে তার স্বামীকে ডেকে এনে পিটিয়ে হত্যার পর তার মরদেহ বাড়ির পাশে একটি গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে তারা।

পরদিন শনিবার (১৬ নভেম্বর) সকালে পুলিশ গিয়ে গাছের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেয়া ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায় এবং একটি অপমৃত্যু মামলা করে। একই সঙ্গে তাকেও ছানোয়ারের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ধর্ষণের বিষয়টি জানালেও পুলিশ মামলা নেয়নি। পরে সোমবার রাতে সদর থানায় ধর্ষণের মামলা হয়। তিনি বর্তমানে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জামালপুর সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সালেমুজ্জামান জানান, ওই গৃহবধূর স্বামীকে হত্যা করা হয়েছে না-কি তিনি আত্মহত্যা করেছেন তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে জানা যাবে। সোমবার রাতে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনায় অভিযুক্ত শাওনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

নিউজ বাংলার আলো
নিউজ বাংলার আলো
এই বিভাগের আরো খবর