মঙ্গলবার   ১৪ জুলাই ২০২০   আষাঢ় ২৯ ১৪২৭   ২৩ জ্বিলকদ ১৪৪১

২৬২

ওয়াশিংটন পোস্টের সংবাদ এবং তার প্রেক্ষিতে দেশের হলুদ সাংবাদিকতা

প্রকাশিত: ২৯ এপ্রিল ২০২০  

করোনা ভাইরাস নামক মহামারীতে কাঁপছে বিশ্ব। অদৃশ্য এই ভাইরাস মোকাবেলায় একপ্রকার অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে বিশ্ববাসী। বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছে গোটা দুনিয়া। করোনা মোকাবেলায় জরুরি ভিত্তিতে বিভিন্ন দেশ বিভিন্ন ধরনের ব্যবস্থা নিচ্ছে। 

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশে করোনা ভাইরাস শুরু হওয়ার আগে থেকেই বিভিন্ন ধরনের করোনা প্রতিরোধ প্রস্তুতি নিয়েছেন। এর  কার্যক্রম হিসাবে প্রায় ১ লাখ কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা করেন। এবং শহর থেকে গ্রামের প্রান্তিক পর্যায়ে ত্রাণের ব্যবস্থা করেছেন। যেখানেই ত্রাণের অনিয়মের খবর এসেছে, সাথে সাথে সেখানে ব্যবস্থা নেয়াও হয়েছে। 

কিন্তু এই সুযোগে সক্রিয় হয়ে উঠেছে কিছু পেইড মিডিয়া। নামে-বেনামে উড়ো খবর ছাপাচ্ছে। দেশ-বিদেশে এই করোনা প্রতিরোধের সফল কার্যক্রম নিয়ে দুর্নাম ছড়াচ্ছে। এরা যে মূলত দেশকেই অপমান করছে বিশ্ব দরবারে তা ভুলে যাচ্ছে। 


সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট কয়েকটি দেশের করোনা মোকাবেলার ক্ষেত্রে দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরে সংবাদ প্রকাশ করেছে। করোনার মধ্যে যেসব দেশে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে তার মধ্যে কলম্বিয়া, রোমানিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রসহ একাধিক দেশের নাম রয়েছে।এর মধ্যে বাংলাদেশ নিয়েও একটা সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে।

পত্রিকাটির খবরে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ প্রতিরোধে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশেও লকডাউন চলছে। লকডাউনের ফলে মানুষ ক্ষতির মুখে পড়েছে। এজন্য সরকারের পক্ষ থেকে চালসহ খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে। তবে এরই মধ্যে ২ লাখ ৭২ হাজার কেজি চালের কোনো হিসাব পাওয়া যাচ্ছে না।
এবং ওয়াশিংটন পোস্ট এটাও বলছে, ইতোমধ্যে সরকারি চাল বেশি দামে বাজারে বিক্রির অভিযোগে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের অন্তত ৫০ জনকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকজন জনপ্রতিনিধিও রয়েছে।

উপরের খবরটা লক্ষ করলে দেখবেন, এখানে  আটকের মধ্যে জনপ্রতিনিধিরাও আছে, কিন্তু আমাদের দেশের কিছু মিডিয়ায় উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে এই খবরটা গোপন করে মিথ্যা সংবাদ প্রচারে ব্যস্ত। তারা কোথাও প্রচার করছে না এই অনিয়মের বিরুদ্ধে সরকারের অবস্থানের কথা।

করোনাকালীন পরিস্থিতিতে এই ধরণের সাংবাদিকতা মোটেই গ্রহণযোগ্য নয়।সাংবাদিকতার নামে অনেক সময় হলুদ সাংবাদিকতার প্রবণতা আমরা দেখতে পাই, তাই বলে কি এই সময়ও এটা গ্রহণযোগ্য! এখনি সময় দেশের করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য হলুদ সাংবাদিকতা পরিহার করে এক হয়ে কাজ করা। অর্বাচীনতা পরিহার করে, সঠিক সংবাদ দেশের মানুষের কাছে তুলে ধরতে হবে।

নিউজ বাংলার আলো
নিউজ বাংলার আলো
এই বিভাগের আরো খবর